আজ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-র জন্মদিন, শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী সহ অন্যান্যরা আজ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-র জন্মদিন, শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী সহ অন্যান্যরা
সংবাদ শিরোনাম :
জাতীয় অ্যাকাডেমির দায়িত্ব নিচ্ছেন না লক্ষ্মণ কয়লা পাচার কান্ডের মূল অভিযুক্ত বিনয় মিশ্রের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি বিজেপির যুবনেতা খুন, গ্রেপ্তার ১ ২০২২ এর নির্বাচনকে সামনে রেখে বৈঠক করতে চেয়ে সোনিয়া গান্ধীকে চিঠি সিধুর সেরার শিরোপা ছিনিয়ে নিল হেমতাবাদ শিক্ষকপল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি উৎসবের মরশুমে পকেটে ছ্যাঁকা আমজনতার। বৃদ্ধি পেল পেট্রোল ডিজেলের মূল্য পুজোতে জোটে নি নতুন জামা, রাস্তায় সবজি বিক্রি করছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র রাজদীপ বুধবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা RTS, S/AS01 ম্যালেরিয়া ভ্যাকসিন অনুমোদন করেছে দু’বছর পর ঘর ওয়াপসি সব্যসাচী দত্তের দুই পরিবারের বিবাদে মৃত্যু এক ব্যক্তির
আজ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-র জন্মদিন, শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী সহ অন্যান্যরা

আজ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-র জন্মদিন, শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী সহ অন্যান্যরা

ছবি সংগৃহীত

 নিউজ ডেস্ক, ১ অক্টোবর :  দেশের ১৪ তম রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-র জন্মদিন। ১লা অক্টোবর ১৯৪৫ সালে উত্তরপ্রদেশের কানপুর দেহাত জেলার পারাউখ গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা মাইকুলাল ছিলেন একজন ভূমিহীন চাষি। ছোট্ট দোকানের উপর নির্ভর ছিল মাইকুলাল কোবিন্দের সংসার। রামনাথ কোবিন্দ জন্মেছিলেন যে মাটির কুঁড়ে ঘরে সেটি এখন আর নেই। ৫ ভাই ও ২ বোনের মধ্যে সবথেকে ছোট রামনাথ।

মাত্র ৫ বছর বয়সে তার মা কলাবতী মারা যান। এরপর গ্রামের পাঠশালায় প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করার পর রামনাথ প্রতিদিন ৬ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে খানপুর গ্রামে জুনিয়ার স্কুলে পড়তে যেতেন। অদম্য প্রচেষ্টা ও মনোবলকে পাথেয় করে উনি কানপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন ডক্টর অমিত কুমার শ্রীবাস্তব কলেজ থেকে কমার্স নিয়ে বি.এ ও আইন পাশ করেন। আইন পাশ করার পর রামনাথ দিল্লী চলে আসেন সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা দেওয়ার জন্য। পরপর দুইবার ব্যর্থ হওয়ার পর তৃতীয় চেষ্টায় উনি সফল হন কিন্তু মনঃপুত না হওয়ায় চাকরি না করে তিনি ওকালতি করা শুরু করেন। ১৯৮০ থেকে ১৯৯৩ দীর্ঘ ১৩ বছর উনি দিল্লী কোর্টে ওকালতি করেন। ওকালতির সাথে সাথে রামনাথ তাঁর সমাজসেবামূলক কাজও চালিয়ে যেতে থাকেন। ১৯৭৪ সালের ৩০শে মে উনি সভিতা কোবিন্দের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাঁদের দুটি সন্তান৷ পুত্র প্রশান্ত কুমার ও কন্যা স্বাতী। রামনাথ কোবিন্দ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ-র একজন স্বয়ংসেবক ছিলেন। ১৯৯১ সালে তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির সদস্য হন। ১৯৯৮-২০০২ সময়কালে তিনি বিজেপি দলিত মোর্চার ও সর্বভারতীয় কোলি সমাজের সভাপতি পদে নিযুক্ত থাকেন। তিনি বিজেপির জাতীয় মুখপাত্রও ছিলেন। দেরাপুরে তার পৈত্রিক ভিটেবাড়ি তিনি রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ দলকে দান করেন। ১৯৯৪ সালের এপ্রিল মাসে রামনাথ কোবিন্দ রাজ্যসভার এমপি নির্বাচিত হন। মার্চ ২০০৬ পর্যন্ত একনিষ্ঠ ভাবে তিনি দলিত সম্প্রদায়ের জন্য উন্নয়নমূলক কাজে নিযুক্ত ছিলেন। স্বরাষ্ট্র, পেট্রোলিয়াম ও প্রাকৃতিক গ্যাস, সামাজিক ন্যায় বিচার – প্রভৃতি ক্ষেত্রে তিনি দৃষ্টান্ত মূলক কাজ করেছেন। তিনি লখনউয়ের ড. বি আর আম্বেদকার ইউনিভার্সিটির ও আইআইএম কলকাতার পরিচালন বোর্ডের সদস্য ছিলেন অক্টোবর ২০০২ পর্যন্ত। ৮ই আগস্ট ২০১৫ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রতিভা দেবীসিংহ পাটিল রামনাথ কোবিন্দকে বিহারের রাজ্যপাল নিযুক্ত করেন। ১৬ই আগস্ট ২০১৫ তে পাটনা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ইকবাল আহমেদ আনসারী তাঁকে রাজ্যপালের শপথ বাক্য পাঠ করান। ২০শে জুলাই ১৪তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি বিহারের রাজ্যপালের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় তাঁর এই পদত্যাগ স্বীকার করেন। ২৫শে জুলাই ২০১৭ তারিখে উনি ভারতের রাষ্ট্রপতির দ্বায়িত্ব ভার গ্রহণ করেন। তাঁর জন্মদিনে এদিন শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকলেই।


Comments are closed.

২০২০ কপিরাইট সংরক্ষিত আরসি টিভি সংবাদ
error: Content is protected !!